শনিবার, মে ৩০, ২০২০

কম খরচে ঘর সাজানোর কিছু দরকারী টিপস ও আইডিয়া

পৃথীবিতে যত শান্তির যায়গা রয়েছে তার মধ্যে ঘর হচ্ছে অন্যতম একটি যায়গা। সারাদিন মানুষ কাজ শেষে একটু প্রশান্তির আশায় ঘরে ফিরে। তাই প্রত্যেক মানুষ চায় তার ঘরটি হোক সুন্দর করে সাজানো গোছানো, পরিপাটি এবং ছিমছাম। একটা ঘর সাজাতে হলে অনেক সময় এবং অর্থের দরকার পড়ে। কিন্তু একটু বুদ্ধি খাটিয়ে খুব কম সময়ে এবং কম ঘরচে নিজের ঘরটি সাজানো যায়।

তবে একটি বিষয়ের উপর খুবই গুরুত্ব দিতে হবে তা হলো যার ঘর গোছাচ্ছেন তার রুচি ও পছন্দের সাথে মানানসই কিনা।

প্রথমে সব ঘর একবারে পরিষ্কার বা গোছানো উচিত নয় এতে সময় অনেক বেশি লাগবে। প্রথমে সব কিছু রাখার নির্দিষ্ট জায়গা ঠিক করে দিতে হবে যাতে পরিবারের বাকী সদস্যরা তাদের প্রয়োজনীয় জিনিস গুলো হাতের নাগালে পায়।

তাহলে কথা না বাড়িয়ে দেখে নেই সস্তায় সুন্দরভাবে ঘর সাজানোর কিছু প্রয়োজনীয় কেীশল।

ঘর সাজানোর দরকারী টিপস

১. ঘরের বাড়তি জিনিস বিদায় করুন

ঘরের অপ্রয়োজনীয় জিনিস অনেক যায়গা দখল করে রাখে। খুব বেশি দরকার না হলো এগুলো কাউকে দিয়ে দিতে পারেন অথবা পরবর্তীতে দরকার পড়লে বাক্সে রেখে দিতে পারেন। আর যদি বাচ্চাদের খেলনা হয় সেগুলো সো পিচ হিসেবে সাজিয়ে রাখতে পারেন। এতে করে ঘরের সৌন্দর্যৃ আরো বৃদ্ধি পাবে।

 

২. রঙের পরিবর্তন

ঘরকে আরো আকর্ষ্নীয় করতে দেয়ালের রং গুরুত্বপূর্ন্ ভূমিকা পালন করে থাকে। ঘরের মধ্যের জিনিসপত্র অনুযায়ী রং নির্বাচন করতে হবে। গাঢ় রং করলে ঘরের আকার অনেক ছোট দেখায় আর হালকা রং করলে ঘরকে অনেক বড় দেখায়। অতএব ঘরের জিনিসপত্রের সাথে যে রং বেশি ফুটিয়ে তুলতে পারবে সেই রং ব্যবহার করুন।

 

৩. অদল বদল

একরুমের জিনিস  আরেকে ‍রুমের জিনিসের সাথে অদল বদল করে নিতে পারেন। যেমন ড্রইং রুমের পেইন্টিং, ঘড়ি, ফুলদানী ইত্যাদি বেড রুমে সাথে অদল বদল করতে পারেন। ঘরের আসবাবপত্র গুলো এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় রেখে দেখতে পারেন কেমন লাগে ঘরটি। শুধু দেখতে হবে ঘরের আসবাবপত্রের কোন কম্বিনেশনে ঘরটি আরও পরিপাটি হয়ে উঠে। সামান্য জিনিসের অদল বদলই ঘরের সেীন্দর্য বহু গুনে বৃদ্ধি করে দিতে পারে।

 

৪. ফুল দিয়ে ঘর সাজানো

ফুল এমন একটি জিনিস যা যেকারো মন মূহুর্তে ভালো করে দিতে পারে। ঘরে ফুল রাখলে ঘরের সেীন্দযৃ বহু গুনে বৃদ্ধি পায় এবং মন ভালো হয়ে যায় । কম খরচে ঘর সাজাতে ফুলের কোন বিকল্প নেই। এক্ষেত্রে কৃত্রিম ফুল আজকাল অনেকে ব্যবহার করে থাকে চাইলে আপনে বাজার থেকে কিনে নিতে পারেন অথবা ঘরে বসেই তৈরী করে নিতে পারেন। নিজে বানালে সৃজনশীলতার প্রকাশ ঘটবে।

 

৫. বই দিয়ে সাজিয়ে নিন

বইপ্রেমীদের ঘর থাকে বইয়ে ঠাসা। এক্ষেত্রে একটি আলমারি অথবা বুকশেলফ এ বই রাখতে পারেন কিন্তু পরিষ্কার করা হলেও তেমন বেশি যত্ন নেওয়া হয়না। ঘরের সেীন্দর্য বাড়াতে উজ্জল কভারে মুড়ানো বই গুলো সামনের দিকে রাখতে পারেন অথবা একই রংয়ের বই একসাথে রাখতে পারেন। আর পুরানো বই গুলো বক্স এ পুড়ে রাখতে পারেন।

 

৬. সোফা নির্বাচন করা

সোফা একটি ঘরের গুরুত্বপূর্নৃ অংশ তবে দামী সোফা মানেই যে ঘরের সেীন্দযৃ বৃদ্ধি পাবে এমনটি নয়। বর্তৃমানে বাশ এবং বেতের তৈরী সোফা দিন দিন জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। অতি অল্প খরচে বেত ও বাশের তৈরী সোফা দিয়ে ঘর সাজানো যেতে পারে

 

৭. পর্দার পরিবর্তন করুন

ঘরের পর্দা একেবারে সরানো যাবে না । তবে একরুমের পর্দা অন্যরুমে ব্যবহার করতে পারেন অথবা দেয়ালের রং অনুযায়ী পর্দার পরিবর্তন আনতে পারেন এতে ঘরের সেীন্দযৃ বৃদ্ধি পাবে বহুগুন।

 

৮. দেয়ালে পেইন্টিং করতে পারেন

ঘরের মধ্যে শৈল্পিক ছোয়া বাড়াতে চাইলে দেয়ালে পেইন্টিং ঝুলিয়ে দিতে পারেন অথবা নিজের মতো করে পেইন্টিং করে নিতে পারেন।

 

৯. মাটির শো-পিস এর ব্যবহার

আজকাল মাটির তৈরী জিনিস বা মাটির টেরাকোটা দিয়েও ঘর সাজানো যেতে পারে। এসকল জিনিস খুব সহজেই কম খরচে কিনতে পাওয়া যায়।

 

১০. সুগন্ধির ব্যবহার

ঘরের সেীন্দযৃ বৃদ্ধি করতে যেমন নানান আসবাবপত্রের প্রয়োজন তেমনি ঘরকে আরও প্রানবন্ত করতে এয়ারফ্রেশনার বা বিভিন্ন সুগন্ধি ব্যবহার করা যেতে পারে । এতে মন সতেজ আর ঘর সুগন্ধময় হবে।


Read More/আরও পড়ুন



কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন