রবিবার, নভেম্বর ০১, ২০২০

৪০ টি মজার ধাঁধা প্রশ্ন ও উত্তর সমূহ

৪০ টি মজার ধাঁধা প্রশ্ন ও উত্তর সমূহ যেগুলো আপনার জানা থাকলে বন্ধুদেরকে বুদ্ধির লড়াইয়ে হারিয়ে দিতে পারবেন। আর তাইতো বিখ্যাত কিছু ধাঁধা আপনাদের জন্য উপস্থাপন করছি।

funny puzzle questions with answers

হাত আছে পা নেই,

বুক তার ফাটা

মানুষ গিলে খায়,

নাই তার মাথা

উওর: শার্ট

 

আরও পড়ুন: ৫০ টি কঠিন ধাঁধা প্রশ্ন ও উত্তর

 

হাত দিয়ে সাজিয়ে

কাছে দেই থালায়,

বরযাত্রী বুড়াবুড়ি

মজা করে খায়

উওর: পান

 

আরও পড়ুন: নেতৃত্ব নিয়ে উক্তি

 

কাটলে বেড়ে যাবে, সব শেষে জল পাবে।’

উত্তর: পুকুর

 

কাজ করি সুড় দিয়ে

নই আমি হাতি।

পরের উপকার করি

তবু খাই লাথি।’

উত্তর : ঢেঁকি

 

কায়স্ত অস্ত্র ছাড়া,

পাঁঠা ছাড়ল পা।

লবঙ্গে বঙ্গ ছাড়া,

এনে দেব তা।’

উত্তর : কাঁঠাল

 

কালো মুখো পুত যার

বুকে আঘাত করে,

কিন্তু মার অভিশাপে

জ্বলে-পুড়ে মরে।’

উত্তর : দিয়াশলাই

 

আড়াই শত থেকে পাঁচ পঞ্চাশ গেলে,

কালিদাসের ধাঁধায় আর কত পেলে?’

উত্তরঃ শুন্য

 

কলকাতাতে লাগল আগুন,

তালুক গেল পুড়ে।

কাঠঘানিতে ধোঁয়া বেরুল,

নারিকেল ভাঙা কুঁড়ো।

উত্তরঃ হুক্কা

 

আকাশ থেকে পড়ল ফল,

ফলের মধ্যে

শুধুই পানি।

উত্তর: শিলা

 

আকাশে উড়ি আমি,

পাখির আকারে।

মাছ ধরে যাই আমি

দৈত্যের রূপ ধরে।

উত্তর: বক পাখি

 

এতো বড় আঙিনা,

ঝাড় দিয়েও কুলায় না।

কতো ফুল ফুটে আছে,

নাই তার তুলনা।’

উত্তর : আকাশ ও তারা

 

এখান থেকে ফেললাম ছুরি,

বাঁশ কাটলাম আড়াই কুঁড়ি।

বাঁশের মধ্যে গোটা গোটা,

আমার বাড়ি চল্লিশ কোটা।

কোঠার উপর কোট জমি,

তার মধ্যে আছে এক রাণী।’

উত্তর: মৌমাছি।

 

এখান থেকে ফেললাম দড়ি,

দড়ি গেল বামন বাড়ি।

বামন বলে ধর ধর!

দড়ি বলে দেখ দেখ

মানুষ হাঁটে আমার উপর।’

উত্তর: রাস্তা।

 

করিমের আব্বার তিন ছেলে-

ছোটটির নাম রহিম,

মেজোটির নাম ফাহিম,

তার বড় ছেলের নাম কী?’

উত্তর : করিম

 

কাটলে সকল বস্তু

ছোট হয়ে যায়,

এমন কি আছে

যা কাটলে বড় হয়।’

উত্তর : পুকুর

 

কারিগরিতে শ্রেষ্ঠ তিন বর্ণের

দেশের নাম বলো-

প্রথম বর্ণ বাদ দিয়ে

রোজ খেলে দাঁত হয় কালো।’

উত্তর : জাপান

 

উল্টে যদি দাও মোরে

হয়ে যাব লতা,

কে আমি ভেবেচিন্তে

বলে ফেলো তা।’

উত্তর: তাল

 

আগা ঝন ঝন

গোড়া মোটা,

যে না পারিবে

সে যে বোকা।

উত্তর: ঝাড়ু

                                                                        

কলের মধ্যে দিলে পা, ভাগ্যের লিখন হবে তা।’

উত্তর: কপাল।

 

কদমের ভাই সজন রায়,

একশ’ আটটা জামা গায়।

তবু তার সাধ মেটে না,

আরও সে জামা চায়।’

উত্তর: কলাগাছ

 

কোন গাছে হয় না ফুল, তবু আছে গন্ধ।’

উত্তর: চন্দন

 

এক ঘরে জন্ম হয়,

দুই সহোদর ভাই।

মানুষের শরীর মাঝে,

এর দেখা পাই।’

উত্তর: চোখ

 

এক গাছে হয় তিন তরকারি, আজব কথা বলিহারি।’

উত্তর: কলাগাছ

 

আগা গোড়া বেশি নয়,

মাঝে বেশি জল।

গাছে গাছে ফলে থাকে,

সে কি দেশি ফল।’

উত্তর: কদম

 

একটুখানি গাছে

তিল ঝুরঝুর করে।

একটুখানি টোকা দিলে

ঝরঝরিয়ে পড়ে।’

উত্তর: শিশির

 

আসল ছেড়ে বছর গেল, প্রাপ্তিযোগে কি ফল হল?’

উত্তর: আপেল

 

আগা কেটে ডাল কেটে,

বসাইলাম চারা,

ফুল নাই ফলও নাই

পাতাতেই ভরা।’

উত্তর: পান

 

আগা গোড়া কাটা,

চুলের জন্য ঝাটা।’

উত্তর: চিরুনি

 

বলতে পারো নাকি,

কার লেজ কেটে দিলে

প্রথম ব্যঞ্জন বর্ণ থাকে?’

উত্তর: কলেজ

 

মুখ দিয়ে খায়, পেট দিয়ে ফেলে।

উত্তর: বদনা

 

একটা মাথা তিনটা পা,

চললে বলি আগে আগে।

থামলে বলি হায় হায়,

প্রাণটা বুঝি রাখা দায়।’

সিলিং ফ্যান

 

একটা ছোট ঘরে,

অনেক মাথা ধরে।’

দেশলাই

 

উল্টো করে চলবে তুমি,

চালটা তোমার ধরে।

পা কেটে ফল খাইয়ে দেব,

ফল কেটে পান করে।’

উত্তর: বেলচা

 

উড়লেও পাখি নয়

বলো দেখি কারে কয়?’

উত্তর: চামচিকা

 

উল্টে যদি দাও মোরে হয়ে যাব লতা,

কে আমি ভেবে চিন্তে বলে ফেলো তা।’

উত্তর: তাল

 

উল্টো সোজা একই কথা,

প্রাণি যেথা সেও তথা।

তিন অক্ষরে সবটা,

বল দেখি উত্তরটা।’

উত্তর: নয়ন

 

রয় না আকাশে,

যাবে না চোখেও।

বাগানে চেয়ে দেখ,

তবুও সে হাসে।’

উত্তর: নয়নতারা

 

আছাড়ে হই না কাবু,

নই আমি ফুলবাবু।

টেপাটেপিতে মরণদশা,

আমি তো নই মশা।

ক্ষুধা লাগলে সবাই

হয়ে যায় পাগল,

আমাকে করতে জোগাড়

বাজারে নামে ঢল।’

উত্তর: ভাত

 

আগায় খস খস

গোড়ায় মৌ,

যে বলতে না পারবে

সে পবন ঠাকুরের বউ।’

উত্তর: আখ

 

আপনার কোন জিনিসটি অন্যরা সর্বদা ব্যবহার করে?

উত্তর: নাম

 

উঠিতে ঝটপট

বসিতে পাহাড়,

লক্ষ লক্ষ জীব ধরে

করে না আহার।’

উত্তর: খেওয়া জাল

 

উঠান ঠন ঠন বৈঠক মাটি,

কুমারে পড়ছে ঐ।

ঘটি বিনে দুধে হইচই,

এমন কুমার পাইল কই?’

উত্তর: চুনের ঘটি

 

উঠানে বাগানে আমি থাকি বারো মাস,

আমাকে পেতে লোকে করে কত আশ।

আমাকে ছাড়া হয় না শুভ কাজ-অনুষ্ঠান,

সোনার চেয়ে আমাকে বেশি দেয় সম্মান।’

উত্তর: ফুল

 

একটা গরুর পাছ পাছ লেজুর,

পাঁচটা গরুর কয়টি লেজুর?’

পাঁচটি

 

রাস্তাঘাটে অনিচ্ছায়

সদাই করি ভক্ষণ,

বড়োর চেয়ে ছোটরাই

খায় বেশি সারাক্ষণ।’

উত্তর : সিগারেট

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন